শনিবার, ২৭ অক্টোবর, ২০১২

২৭অক্টোবর ভাওয়াইয়া সম্রাট আব্বাস উদ্দিনের ১১১তম জন্মদিন

আজ ভাওয়াইয়া সম্রাট আব্বাস উদ্দিনের ১১১তম জন্মদিন thumbnail
২৭অক্টোবর ছিল ভাওয়াইয়া সম্রাট আব্বাস উদ্দিনের ১১১তম জন্মদিন। তার স্মৃতিধন্য কুড়িগ্রামের মানুষ আজও তাকে আর ভাওয়াইয়াকে লালন করছে আপন ভালোবাসায়। শুধু সংগীত চর্চা করা হলেও তার স্মৃতিচিহৃগুলো সংরক্ষনের তেমন কোনো ব্যবস্থা করা হয়নি।
আব্বাস উদ্দিন আহমদ ১৯০১ সালের ২৭ অক্টোবর ভারতের কুচবিহার রাজ্যের বলরামপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। পিতা জাফর আলী আহমদ ছিলেন আইনজীবি। বিপুল ধনসম্পদের অধিকারী। কিন্তু সবকিছু ছেড়ে আব্বাস উদ্দিন ১৯৪৭ সালে ভারত-পাকিস্থান বিভক্তির দিনই ভারতের কোলকাতা থেকে ঢাকায় চলে আসেন। যিনি স্বপ্ন দেখতেন স্বাধীন-সার্বভৌম রাষ্ট্রের। যে জন্য তিনি জীবনের সোনালী সময় ব্যায় করেছেন, মানুষকে স্বাধীনভাবে বাঁচতে উদ্বুদ্ধ করেছেন গানে গানে। তিনি চলে আসেন স্বাধীন রাষ্ট্রে-সকল ধনসম্পদ ত্যাগ করে শূণ্যহাতে স্ত্রী, সন্তানদের নিয়ে। ঢাকায় স্থায়ী হয়েই তিনি এ দেশের মানুষকে গানের দিকে উদ্বুদ্ধ করতে থাকেন। প্রত্যন্ত এলাকায় ঘুরে ঘুরে সংগীত চর্চা কেন্দ্র খোলার ব্যবস্থা করেন। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে সাংস্কৃতিক সমাবেশসহ নানা অনুষ্ঠানে ভাওয়াইয়াকে পৌছে দিয়েছেন ভাওয়াইয়া সম্রাট আব্বাস উদ্দিন।
এক রকমের পৃষ্টপোষকতা ছাড়াই কুড়িগ্রাম অঞ্চলের প্রাণের গান ভাওয়াইয়া এখনো সমৃদ্ধ। তাই এই গানকে টিকিয়ে রাখতে সরকারী-বেসরকারী সহযোগিতা প্রয়োজন। তবেই ভাওয়াইয়া আরও সমৃদ্ধ হবে, ছড়িয়ে যাবে সারা বিশ্বে।
আব্বাসউদ্দিনই প্রথম ভাওয়াইয়াকে রেকর্ড করে সকলের সামনে উপস্থাপন করেন। তার প্রথম রেকর্ডকৃতগান হলো- ‘ওকি গাড়য়াল ভাই কত রব আমি পন্থের দিকে চায়া রে…’ এবং ‘ফান্দে পড়িয়া বগা কান্দে রে…’।
সেই সাথে বিভিন্ন রাজনৈতিক সভায় গান গেয়ে বাঙালিদের উদ্বুদ্ধ করতেন। গাইতেন ‘ওঠরে চাষী জগৎবাসী, ধর কষে লাঙল’। শুধু ভাওয়াইয়া গানই নয় তিনি বাংলা ইসলামী গানেরও স্রষ্ঠা। কাজি নজরুল ইসলামকে দিয়ে লিখিয়ে নিয়েছিলেন বাংলা ইসলামিক গজল। আজও সকলের কন্ঠে ওঠে ‘ও মন রমজানের ঐ রোজার শেষে এলো খুশির ঈদ’। এ ছাড়াও উর্দু, জারি, সারি, ভাটিয়ালি, মুর্শিদি, দেহতত্ব, মার্সিয়া, পালাগান গেয়েছেন। শুধু গানই নয় আব্বাস উদ্দিন ৪টি সিনেমায় অংশ নেন। সিনেমাগুলো হলো ‘বিষ্ণমায়’ (১৯৩২), ‘মহানিশা’ (১৯৩৬), ‘একটি কথা’ এবং ‘ঠিকাদার’ (১৯৪০)।
ভাওয়াইয় সম্রাট আব্বাস উদ্দিন স্মরণে কুড়িগ্রামে চলছে ব্যাপক আয়োজন। এ উপলে আজ বাংলাদেশ  ভাওয়াইয়া একাডেমী, ভাওয়াইয়ার আসর ও বাংলাগানের দল মেঠোজন আয়োজন করেছে পৃথক কর্মসূচি।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন